1. admin@manobkollan.com : admin :
  2. mkltdnews@gmail.com : Anamul Gazi : Anamul Gazi
  3. mdrifat3221@gmail.com : MD Rifat : MD Rifat
  4. mkltd2020@gmail.com : Mehedi Hasan : Mehedi Hasan
  5. riff1431@gmail.com : Shariar R. Arif : Shariar R. Arif
বাহুবলে আপন ভাইকে অধিকার বঞ্চিতের অভিযোগ মামলা করেও রেহাই পাচ্ছে না দরিদ্র বাবুল - মানব কল্যান - মানব কল্যাণ
রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ০৩:১২ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
আসসালামু আলাইকুম  মানবকল্যাণ এর সাথে যুক্ত হওয়ার জন্য  আপনাকে অভিনন্দন। আমরা আপনাদের সহযোগীতায় একদিন শিখরে পৌছাব "ই"। ইনশাআল্লাহ । বিজ্ঞপ্তিঃ সারাদেশব্যপী প্রতিনিধি নিয়োগ চলিতেছে।   ই-মেইলঃ info@manobkollan.com ফোন নাম্বারঃ 01718863323

বাহুবলে আপন ভাইকে অধিকার বঞ্চিতের অভিযোগ মামলা করেও রেহাই পাচ্ছে না দরিদ্র বাবুল – মানব কল্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : শুক্রবার, ১৫ মে, ২০২০
FB IMG 15895578286398100 মানব কল্যাণ

 

হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার বাবনাকান্দি গ্রামের আপন সহোদর ভাই বাবুল মিয়াকে নিজ পৈত্রিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করার হীন ষড়যন্ত্রের মেতে উঠেছে আরেক ভাই নশাই মিয়া ও তার পুত্ররা।

উদ্দেশ্য বাবুল মিয়াকে তার পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করে তার সমুদয় সম্পত্তি ভোগ দখল করা। এ নিয়ে অসংখ্যবার নির্যাতিত বাবুল নশাই ও তার পুত্রদের দ্বারা রক্তাক্ত ও হামলার শিকার হয়েছে।

বিবরণের জানা যায়, ২০০৮ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত বাবুল মিয়া মালয়েশিয়ায় কর্মরত থাকা অবস্থায় প্রায় সাড়ে ৪ লক্ষ টাকা বিভিন্ন ডুকুমেন্টারীভাবে নশাই মিয়াকে প্রদান করেন।

পরবর্তীতে বাবুল মিয়া দেশে আসায় ওই টাকার খরচের যথাযথ হিসাব দেখাতে পারায় নশাই ও বাবুলের মাঝে শুরু মনস্থাত্তিক দ্বন্ধ। এই দ্বন্ধের জেরেই দু’ভাইয়ের মাঝে চলছে মারামারি ঝগড়া ও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ।

নানাবিধ ভাবে বাবুলকে সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করার ষড়যন্ত্র। এ নিয়ে বাবুল মিয়া সম্প্রতি নশাই মিয়াকে লিগ্যাল নোটিশ প্রদান করেন বাবুল মিয়া। বাবুল মিয়ার পক্ষে নোটিশ প্রেরণ করেন হবিগঞ্জ জজ কোর্টের এডভোকেট জহিরুল আলম তুহিন। কিন্তু নোটিশেরও জবাব যথাযথ হয়নি বলে জানান বাবুল।
ইতিমধ্যে বাবুল মিয়ার উপর যেসব অত্যাচার নির্যাতন চালানো হয় তার প্রতিটি মামলা ও অভিযোগের সত্যতা পায় তদন্ত কমিটি। গত বছরের ২২ অক্টোবর বাবুল মিয়ার বসতঘর ভাংচুর করে নশাই ও তার দলবল। এ ঘটনায় বাবুল মিয়ার স্ত্রী হামিদা বেগম বাহুবল মডেল থানায় অভিযোগ (জিডি নং৫৫৩/তাং ১১/১১/২০১৯) দাখিল করলে তৎকালীন থানার এসআই মহরম আলী আদালতের অনুমতি নিয়ে ঘটনাটি তদন্ত করে সত্যতা পান বলে জানান নিরীহ বাবুল ও তার স্ত্রী হামিদা। ওই অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয় নশাই মিয়া, ফাকু মিয়া ও ইয়াকুব আলী। এভাবেই আজ দরিদ্র বাবুল মিয়া তার স্ত্রী সন্তান নিয়ে ভাই ভাতিজা ও কয়েক কুচক্রী দ্বারা চরম নিরাপত্তাহীনতায় আছেন বলে জানান ভূক্তভোগী।

সোসাল মিডিয়ায় সেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

বিভাগ

Development Nillhost
error: Content is protected !!