1. admin@manobkollan.com : admin :
  2. mkltdnews@gmail.com : Anamul Gazi : Anamul Gazi
  3. mkltd2020@gmail.com : Mehedi Hasan : Mehedi Hasan
  4. riff1431@gmail.com : Shariar R. Arif : Shariar R. Arif
নওগাঁর রাণীনগরে ৫বছরধরে শিকল দিয়ে বেঁধে রেখেছে নিপেন চন্দ্র পালকে - মানব কল্যাণ
সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১২:৪৩ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
ডিমলায় গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক নীলফামারীর ডোমারে জাতীয়বাদী যুবদল উপজেলা ও পৌর শাখার নবগঠিত কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত সাভার থানা সরপের আহবায়ক কমিটি গঠন সম্পূর্ণ ডিপ্লোমা ইন্জিনিয়ারিং চলমান শিক্ষা জটিলতা দ্রুত নিষ্পওির দাবিতে মৌলভীবাজার,সরকার বাজার সিএনজি গ্রুফ পরিচালনার কমিটির দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে চলছে ঝমঝমাট প্রচারণা চুয়াডাঙ্গার উক্ত গ্রামে এক ভন্ড কবিরাজের খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব হারাচ্ছে জন সাধারণ অপরাধ করে পার পাচ্ছেন না, কেউ পুলিশও পাবে না ছাড় : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চুয়াডাঙ্গার উক্ত গ্রামে এক ভন্ড কবিরাজের খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব হারাচ্ছে জন সাধারণ ট্রাক্টর-মাইক্রোবাস সংঘর্ষে দুজন নিহত আহত ৮ নোয়াখালীর প্রবীণ সাংবাদিক আহসান উল্যা মাষ্টার চলে গেলেন না ফেরার দেশে

নওগাঁর রাণীনগরে ৫বছরধরে শিকল দিয়ে বেঁধে রেখেছে নিপেন চন্দ্র পালকে

মেহেদী হাসান
  • Update Time : শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

 

নওগাঁ ভ্রাম্যমান প্রতিনিধিঃ হাবিবুর রহমান (হাবিব)

নওগাঁর রাণীনগর
নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার কালীগ্রাম ইউনিয়নের ভান্ডারা গ্রামে নিপেন চন্দ্র পাল নামের এক মানসিক রোগীকে প্রায় ৫ বছর যাবত ঘরে বন্দি করে রেখেছে তার পরিবার। এক সময় চিকিৎসা করাতে পারলেও বর্তমানে অর্থাভাবে নিপেনকে মাটির অন্ধকার ঘরে পায়ে শিকল পরিয়ে বেঁধে রাখা হয়েছে। কোনো সুযোগ-সুবিধা না পাওয়ার কারণে গরীব এই পরিবার বর্তমানে মানবেতর জীবন-যাপন করছে। নিপেনের উন্নত চিকিৎসার জন্য সরকারের সহায়তা চেয়েছে তার পরিবার।

জানা গেছে, উপজেলার ভান্ডারা গ্রামের মৃত নরেশ চন্দ্র পালের দ্বিতীয় সন্তান নিপেন চন্দ্র পাল (৪২)। ছোটবেলা থেকে খুবই মেধাবী ছিলেন। স্কুলে পড়ার সময় ১২ বছর বয়সের পর থেকে হঠাৎ করেই নিপেনের মাঝে অস্বাভাবিক আচার-আচরণ লক্ষ্য করে পরিবারের সদস্যরা। এরপর থেকে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন তিনি। গরিব পরিবার হওয়ার পরেও একাধিকবার নিপেনের চিকিৎসা ব্যবস্থা করেছে। কিন্তু বর্তমানে আর্থিক সামর্থ না থাকায় আর চিকিৎসা সেবা তার ভাগ্যে জুটছে না। তাকে বাহিরে ছেড়ে দিলেই মানুষকে মারপিট, গালিগালাজসহ নানা ধরনের অত্যাচার করেন। তাই গত ৫ বছর যাবত নিপেনের পায়ে লোহার শিকল দিয়ে একটি মাটির অন্ধকার ঘরের আটকে রেখেছেন তার পরিবার।
বিয়ে দিলে হয়তো নিপেন ভালো হতে পারে এমন ধারনায় ১৮ বছর আগে তাকে বিয়ে দেওয়া হয়। বিয়ের পর সংসার জীবনে রুপালী (৭) নামের একটি কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। প্রতিবেশীরা বলছে সরকারি কোনো সুযোগ-সুবিধা না পাওয়ায় বর্তমানে মানবেতর জীবন-যাপন করছে এই পরিবার। পরিবারের দাবি, সরকারিভাবে যদি তাকে উন্নত চিকিৎসা দেওয়া হয় হয়তো বা সে সুস্থ হয়ে উঠতে পারে।

নিপেনের বড় ভাই নিতাই চন্দ্র পাল বলেন, ৫ বছর যাতব ভাইকে ঘরে বন্দি করে রেখেছি আমরা। এক সময় চিকিৎসা করতে পারলেও বর্তমানে অর্থের অভাবে আর ভাইয়ের চিকিৎসা করাতে পারছি না। দিন দিন নিপেনের শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ হয়ে যাচ্ছে। অত্যাচার করে দেখে বাধ্য হয়ে পায়ে শিকল পরিয়ে ঘরের মধ্যে আটকে রাখা হয়েছে।

নিপেনের স্ত্রী শিখা রানী পাল বলেন, আগে পাগলামি কম থাকলেও দিন দিন তা বৃদ্ধি পাচ্ছে। অর্থের অভাবে আমার স্বামীর চিকিৎসা করাতে পারছি না। সরকারি ভাবে সহায়তা পেলে উন্নত মানের চিকিৎসা করানো যেতে পারে।
কালীগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বাবলু বলেন, আমি নিপেনের বিষয়টি শুনেছি। কিন্তু কেউ তার সহযোগিতার জন্য লিখিতভাবে জানায়নি। তবুও আমি তাদের জন্য কিছু করার চেষ্টা করবো।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল মামুন বলেন, দ্রুত খোঁজ খবর নিয়ে নিপেনের চিকিৎসার ব্যবস্থা ও তার পরিবারকে সহায়তা করার প্রদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

সোসাল মিডিয়ায় সেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

বিভাগ

মানব কল্যাণ ডট কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Terms And Conditions |Privacy Policy  | About Us | Contact  Us
Development Nillhost