রূপালী ইলিশ ধরা পড়ছে জেলেদের জালে   চাহিদা অনুযায়ী মিলছেনা বরফ – মানব কল্যাণ

ছবিঃ মানব কল্যাণ

মোয়াজ্জেম হোসেন কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি:

০৭সেপ্টেম্বর, বঙ্গোপসাগরে জেলেদের জালে ধরা পড়ছে প্রচুর ইলিশ।

আর সেই ইলিশ ট্রলার বোঝাই করে
একরে পার এক আসছে আড়ৎ ঘাটে। চলতি বছরে সাগরে ৬৫ দিন মাছ ধরা
নিষিদ্ধ ছিল। গত ২৩ জুলাই এ সময়সীমা শেষ হয়েছে। করোনার কারণে ওই
সময়টা জেলেরা কর্মহীন হয়ে পড়েন। নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার পর জেলেদের
জালে তেমন ইলিশ ধরা পড়ছিল না। তবে সপ্তাহ জুড়ে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ছে।
এর ফলে পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার মৎসবন্দর মহিপুর-আলীপুরে এখন উৎসব
মূখর পরিবেশ বিরাজ করছে। এদিকে স্থানীয় বরফ কল গুলোও চাহিদা অনুযায়ী
বরফ সাপলাই দিতে পাড়ছেনা। চড়া দামে অন্য এলাকা থেকে বরফ কিনে
আনতে হচ্ছে বলে স্থানীয় ব্যবসায়িরা জানিয়েছেন।
সরেজমিনে দেখা গেছে, ট্রলার থেকে ঝুড়ি ভর্তি করে শ্রমিকেরা ইলিশ
এনে আড়তে ফেলছেন। একদিকে চলে মাপঝোপ। আর অন্যদিকে চলে দরদাম।
পাইকারি ক্রেতারা দরদাম শেষে ইলিশ বরফ দিয়ে সারিসারি ককসেট রাখেন।
আর সেই ককসেট বোঝাই ইলিশ ট্রাক ও অন্যান্য গণপরিবহনের ছাদে করে
চলে যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন এলাকায়। তবে দীর্ঘদিন পর সাগরে প্রচুর ইলিশ
ধরা পড়লেও দাম পাচ্ছেনা জেলেরা এমটাই বলেছেন স্থানীয় ব্যবসায়িরা।
জেলেদের সাথে কথা বলে জানা যায়, করোনার প্রভাব ও সাগরে মাছ ধরার ওপর
নিষেধাজ্ঞার পর জেলেদের জালে তেমন মাছ মিলছিলনা। তবে এখন প্রচুর ইলিশ
ধরা পড়ছে।

ছবিঃ মানব কল্যাণ
ছবিঃ মানব কল্যাণ

মাছগুলো আকারেও বড়। তাই জেলেরা অনেক খুশি।
জেলে কুদ্দুস মাঝি জানান, এমনিতেই ধারদেনা ও মহাজনদের কাছ থেকে
আগাম দাদন নিয়ে সাগরে নামতে হয়েছে। এত দিন তেমন ইলিশ ধরা না
পড়ায় তারা দেনা পরিশোধ নিয়ে চিন্তায় ছিলেন। এই পূর্ণিমার পর গভীর
সাগরে নির্দিষ্ট কিছু পয়েন্টে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ছে। আবহাওয়া
অনুক‚লে থাকলে আরও ইলিশ ধরা পড়বে বলে আশা করছেন তিনি।
মৎস বন্দর মহিপুর আল্লাহ ভরসা আড়দের মালিক তানভির আহম্মেদ লুনা বলেন,
যে হারে সাগরে মাছ পড়ছে এ অনুপাতে বরফ সাপলাই দিতে পারছেনা
এখানকার বরফ কলগুলো। তাই চড়া দামে বরফ আনতে হচ্ছে খুলনা বরিশাল,
পটুয়াখালী ও বরগুনা থেকে। এছাড়া বেশ কয়েক দিন ধরে সাগরে ইলিশ পড়তে
শুরু করেছে। তবে দীর্ঘদিন পর সাগরে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়লেও দামও পাইকারী বাজারে
মাছের দাম কম।
আলীপুর ও কুয়াকাটা মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মো.আনসার
মোল্লা বলেন, হঠাৎ করে সাগরে জেলেদের জালে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ছে।
করোনার কারণে রপ্তানি না থাকায় ইলিশের দাম একটু কম। এখন যে ইলিশ
১৭/১৮ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এই মাছ গত বছর দাম ছিল মণ প্রতি
২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা। তবে সরকার যথাযথ পদক্ষেপ নিলেই মাছের সুরক্ষার

পাশাপাশি উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। জেলেরা উপকৃত হবেন বলে তিনি
জানিয়েছেন।

Author: Mansur Talukder

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *