মাদ্রাসা ছাত্রের তিন খণ্ড পৃথক স্থান থেকে উদ্ধার,খুনি শনাক্ত – মানব কল্যাণ

মোঃ তরিকুল ইসলাম বাবু বিশেষ প্রতিনিধি:

একজন কোরআনের হাফেজ কে এইভাবে মেরে ফেলেছে মানুষ নামের অমানুষেরা।
রাজধানীর দক্ষিণখানে নিখোঁজ হেলাল উদ্দিন নামের এক যুবকের ক্ষতবিক্ষত মরদেহের তিন খণ্ড তিন জায়গা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার বিকালে পুলিশ দক্ষিণখানের গাওয়াইর এলাকা তার মস্তক উদ্ধার করে। এর আগে বিমানবন্দর এলাকার একটি ঝোপ থেকে গলা থেকে নাভি ও দক্ষিণখানের বটতলা এলাকা থেকে কোমর থেকে পায়ের অংশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় সিসিটিভি ফুটেজ দেখে পুলিশ হত্যাকারীদের মধ্যে এক যুবককে শনাক্ত করেছে।
হেলালের বাড়ি পিরোজপুর জেলার নেছারাবাদ থানার দইহাড়ি গ্রামে। মাদ্রাসায় পড়াশুনার পাশাপাশি তিনি দক্ষিণখানের আজমপুরে মোবাইল ফোন রিচার্জের ব্যবসা করতেন।
ঝালকাঠী এন এস কামিল মাদ্রাসার সাবেক এই ছাত্র কোরআনের হাফেজ হেলাল গত রবিবার রাত থেকে নিখোঁজ হন। তাঁকে ব্যক্তিগত বিরোধের জের ধরে তাকে হত্যা করা হতে পারে বলে ধারনা করছে পুলিশ।
রাজধানীর দক্ষিণখান থানায় নিহতের বড় ভাই হুজায়ফা হোসেন বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। হত্যাকারীদের শনাক্তে ছায়া তদন্তে নেমেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।
ইতোমধ্যেই সিসিটিভি ফুটেজ থেকে হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে এক যুবককে শনাক্ত করেছে পুলিশ। তাদের ধারণা সে-ই মূল হত্যাকারী। তবে তার সঙ্গে পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নে আরও অনেকে ছিল বলে ধারণা পুলিশের। তবে এখনো পর্যন্ত এই মামলায় কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি।

Author: Mansur Talukder

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *