1. admin@manobkollan.com : admin :
  2. mkltdnews@gmail.com : Anamul Gazi : Anamul Gazi
  3. mkltd2020@gmail.com : Mehedi Hasan : Mehedi Hasan
  4. riff1431@gmail.com : Shariar R. Arif : Shariar R. Arif
জামালগঞ্জে করোনা প্রতিরোধে সুরক্ষা সামগ্রী পিপিই’র টাকা আত্মসাতের অভিযোগ - মানব কল্যাণ
বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ১২:৪১ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
ব্র্যাক সামাজিক ক্ষমতায়ন কর্মসূচির অংশ হিসাবে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে নোয়াখালীতে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত মৃত্যুর রহস্য উৎঘাটনের জন্য দাফনের পনের দিন পর এক নবজাতকের লাশ কবর থেকে উত্তোলন ডিমলায় চুরি হওয়া গরু ফেরত পেলেন কৃষক তরুণ আলো রক্তদান ফাউন্ডেশনের ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্প অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ ভান্ডারিয়া সরকারি কলেজে নতুন কমিটি অনুমোদন আমান উল্লাহ মহাবিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতিকে অপসারনের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন ডিমলায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসাবে বিএনপি’র মানববন্ধন অনুষ্ঠিত বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল’ উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় দিবস-২০২০’ উদযাপিত দর্শনা হিমেল আবা‌সিক হোটেলে দর্শনা থানা পু‌লি‌শের অ‌ভিযান যুবতীসহ বিজিবি সদস্য আটক ২ ডিমলায় ৩য় শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষনের চেষ্টা গ্রেফতার ১

জামালগঞ্জে করোনা প্রতিরোধে সুরক্ষা সামগ্রী পিপিই’র টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

মেহেদী হাসান
  • Update Time : শুক্রবার, ৫ জুন, ২০২০
মো. শাহীন আলম, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:
সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলায় করোনা প্রতিরোধে সুরক্ষা সামগ্রী’র বরাদ্দকৃত টাকা
আত্মসাতের লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বুধবার (৩ জুন) জেলা প্রশাসক বরাবর
এমন একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন জামালগঞ্জ উপজেলার মানিগাঁও গ্রামের শাহ আবুল
কাশেম।
অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, ইউনিয়ন পরিষদের সুরক্ষার জন্য উপজেলা পরিষদের রাজস্ব তহবিল থেকে ১
লক্ষ টাকা, স্থানীয় সরকার বিভাগের ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা বরাদ্দ হয়। এদিকে উপজেলার ৫ টি
ইউনিয়ন থেকে আরো ১৪ হাজার ৩ শত টাকা করে মোট ৭১ হাজার ৫ শ টাকা উত্তোলন করা হয়।
এভাবে উপজেলা পরিষদে মোট ৩ লক্ষ ১ হাজার টাকা জমা হয়। এছাড়া উপজেলা মাথারগাঁও গ্রামের
বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বিমান বিহারী ১৫০ পিস পিপিই উপজেলা পরিষদে দান করেন। জানা যায় ওই
১৫০ পিস পিপিই’র মধ্যে ১১০ পিস পিপিই ৫টি ইউনিয়ন পরিষদে বিতরণ করা হয়েছে। আবার
ইউনিয়ন পরিষদ থেকে সুরক্ষা সামগ্রী বাবদ ১৪ হাজার ৩ শত টাকা করে যে টাকা আদায় হয়েছে
এই টাকা কোথায় গেলো তা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন উঠেছে। উপজেলা পরিষদের তহবিলে বরাদ্দকৃত
মোট ২ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা গায়েব হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম জিলানী আফিন্দী রাজু বলেন, ১৪ হাজার ৩
শ টাকার বিনিময়ে যদি ইউনিয়ন পরিষদে পিপিই দেয়া হয় তাহলে উপজেলা পরিষদের বরাদ্দর টাকা
গেল কই ? করোনাকালে এমন অনিয়ম মোটেও কাম্য নয়।
উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বিনা রানী তালুকদার বলেন, পিপিই নিয়ে কোন অনিয়ম
হয়নি। বরাদ্দকৃত টাকায় সুরক্ষা সামগ্রী সঠিকভাবে বিতরণ করা হয়েছে।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদের মুঠোফোনে ফোন দিলে রিসিভ না করায় বক্তব্য জানা
যায়নি

সোসাল মিডিয়ায় সেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

বিভাগ

মানব কল্যাণ ডট কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Terms And Conditions |Privacy Policy  | About Us | Contact  Us
Development Nillhost