সুবর্ণচরে সাজানো ধর্ষণ মামলায় রামগতির চা দোকানী আটক

সুবর্ণচরে সাজানো ধর্ষণ মামলায় রামগতির চা দোকানী আট

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে মিথ্যা সাজানো ধর্ষণ মামলায় আইউব আলী নামক এক নিরীহ চা দোকানদারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ সোমবার (৭ জুন) ভোর আনুমানিক ৪ টার দিকে রামগতির ফরিদ মেম্বার বাজারের চা দোকান থেকে ঘুমন্ত অবস্থায় আটক করা হয়।

গ্রেফতারকৃত ব্যবসায়ীর নাম আইউব আলী (২৬), সে রামগতির চর গাজী ইউনিয়নের ০৫ নং ওয়ার্ড দক্ষিণ টুমচরের আবু তাহেরের ছেলে। সে চা দোকান করে ফরিদ মেম্বার বাজারে। ৩/৪ দিন পূর্বে শফি বাতাইন্নার বাহিনী শাহাদাতের সাথে সামান্য কথা কাটাকাটি হয় এরই জেরে শাহাদাতের স্ত্রী রোজিনা আক্তার (৩৫) কে বাদী করিয়ে সাজানো ধর্ষণ মামলায় তাকে জেলে পাঠানো হয়।

এলাকাবাসী নাম না বলার শর্তে প্রতিবেদককে বলেন, এখানে ডাকাতি, মারামারি ও ধর্ষণ এগুলো শফি বাতাইন্নার নাটক ছাড়া কিছুই নয়। মূলত এসব অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটছে রামগতি ও সুবর্ণচর উপজেলার সীমানা নিয়ে দ্বন্দের জের ধরে। এখানে রামগতির কোন লোক যদি ফরিদ মেম্বার বা রামগতির পক্ষ হয়ে ভুমি দস্যু ও বনদস্যু শফি বাতাইন্নার বিপক্ষে ন্যায় কথা বলে, তার উপর নেমে আসে হামলা ও ধর্ষণের মত জগন্য মামলা। শফি বাতাইন্নার নিকট একাধিক পতিতা মহিলা রয়েছে তারা যে কোন মূহুর্তে অন্যকে ফাঁসাতে নিজেকে ধর্ষিতা প্রমাণ করাতে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত।

চর জুবিলীর এক জনপ্রতিনিধি বলেন, শফি বাতাইন্না হলো চর জিয়াউদ্দিনে যত অকামের মূল হোতা। তার ইশারায় সব কিছুই হতে পারে। সে অন্যকে ফাঁসাতে নিজস্ব বাহিনী দিয়ে চুরি, ডাকাতি, খুন, ধর্ষণ ও রাহাজানি সবই করতে পারে। আবার ভালো মানুষকে কৃত্রিম ব্যান্ডেজ ও রক্ত লাগিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে মামলা করাতে প্রস্তুত করানো এসব নোংরামী বাতাইন্নার কাজ।

চর জব্বার থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জিয়াউল হক জানান, আটক আইউব আলীকে ধর্ষণ মামলায় জেলে প্রেরণ করা হয় এবং মামলার বাদী রোজিনা বেগমকে ডিএনএ পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। চর জব্বার থানার এ এস আই কবির হোসেন জানান, আমি আইউব আলীকে তার চা দোকান থেকে ঘুমন্ত অবস্থায় ভোর রাতে আটক করি।

Author: Mansur Talukder

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *