নলছিটিতে রাস্তা সংস্কারের কাজ বন্ধ রাখার প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ

সড়ক অবরোধ

নলছিটিতে রাস্তা সংস্কারের কাজ বন্ধ রাখার প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ

ঝালকাঠির নলছিটি বরিশাল সড়কের কাজে ধীরগতি প্রতিবাদে বুধবার সকাল ৯টা থেকে সড়ক অবরোধ করে রাখে বিক্ষুব্ধ জনগণ। সকাল থেকে সড়কের কুমারখালি ব্রিজের উপর অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করে রাখে তারা। এতে করে সড়কের দুই পাশের গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।অবরোধ করায় নলছিটির সঙ্গে বরিশালের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

এতে সাধারণ যাত্রীদেরকে পড়তে হয় সীমাহীন দুর্ভোগে। অবরোধকারীরা বলেন ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান কামরুল এন্ড ব্রাদার্সের উদাসীনতার কারনে ২ বছর পার হয়ে গেলেও কাজের তেমন কোন অগ্রগতি হয়নি বরং ভোগান্তি বেরেছে। সড়কের সংস্কার কাজ শুরু করে পাথর বালি কিছু অংশে ফেলে রাখা ও কিছু খোঁড়া খুড়ি করেছে, এতে করে ধুলা বালিতে নাকাল পথচারিরা। সড়কে চলাচল অনুপযোগী হয়ে পরেছে।

অবরোধকারীদের বক্তব্যে আরো বলেন প্রতিদিন লাখো মানুষ এই পথ দিয়ে চলাচল করে দীর্ঘ দিনে কাজ শেষ না হওয়ায় আমাদের বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। বর্তমানে রাস্তাটি ভাঙ্গাচুরা ও বেহাল দশায় পরিণত হওয়ায় হাজার হাজার মানুষের যাতায়াতে চরম ভোগান্তির কারণ হয়ে উঠেছে। রোগী নিয়ে সময়মত হাসপাতালে যাওয়া যায় না। দ্রুত রাস্তাটি সংস্কার করা এখন সকলের প্রাণের দাবি হয়ে উঠেছে। মোঃ তূর্য বলেন এখানকার এম পি আমাদের অভিবাবক সাবেক শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু তার প্রচেষ্টায় সড়কটির কাজ শুরু হয়।

কিন্তু ঠিকাদারের উদাসীনতায় ২ বছর পার হলেও কাজ শেষ হয়নি এখনো। তার সুনাম ক্ষুন্ন করতেই এমন করে কাজ ফেলে রাখা হয়েছে। রিভান তার বক্তব্যে বলেন সড়কের বেহাল দশার কারনে সিমাহীন ভোগান্তি পোয়াচ্ছে পথচারিও গাড়ি চালকরা। পরে দুপুর ১২ দিকে প্রশাসনের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেয় বিক্ষুব্ধরা। উল্লখ্য গত ১০ ফেব্রুয়ারি সংস্কার কাজ শেষ করার দাবীতে মানববন্ধন হয়।

এ ব্যাপারে প্রায়শই মানববন্ধন করা হলেও সংস্কার কাজ চলছে না। ১৬ কোটি টাকা ব্যয়ে নলছিটি বরিশাল সড়কের দপদপিয়া পর্যন্ত ৮ কিলোমিটারের কাজ শুরু হয় ২ বছর পূর্বে কিন্তু এখনো কাজ শেষ হয়নি। এ সড়কের সংস্কারে টেন্ডার হওয়া সত্ত্বেও অর্থাভাবে কাজ করছেন না ঠিকাদাররা। এসময় ঠিকাদারের বিচার চেয়ে দ্রুত রাস্তা সংস্কার করার দাবি জানান এলাকাবাসী।

Author: Mansur Talukder

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *