প্রথম বারের মতো জাতীয় দিবস হিসেবে উদযাপিত হলো ঐতিহাসিক “৭ মার্চ

ঐতিহাসিক "৭ মার্চ

প্রথম বারের মতো জাতীয় দিবস হিসেবে উদযাপিত হলো ঐতিহাসিক “৭ মার্চ

প্রথমবারের মতো জাতীয় দিবস হিসেবে পালিত হয়েছে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ। এ উপলক্ষে অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় জেলা-উপজেলা পর্যায়ে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহন করা হয়। প্রশাসনের আয়োজনে প্রথম বারের মতো ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবস উদযাপন করা হয় ।

ঐতিহাসিক ৭ মার্চ যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপনের লক্ষ্যে কর্মসূচি পালন করে নোয়াখালী জেলা প্রশাসন ও সব উপজেলায় জেলা প্রশাসন। এর অংশ হিসেবে নোয়াখালী ৪ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব একরামুল করিম চৌধুরী বলেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ নেতা, বাঙালি জাতির অহংকার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের সূচনা লগ্নে ১৯৭১ সালের ৭ ই মার্চ জাতির উদ্যেশ্যৈ ভাসনে স্বাধীনতার যে ডাক দিয়েছেন মুলত সেটাই ছিল বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা। আজ সেই ঐতিহাসিক ৭ মার্চ।

১৯৭১ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যুগান্তকারী ভাষণের স্মারক হিসেবে দিনটি অবিস্মরণীয় হয়ে আছে। ১৯৭১ সালের এই দিনে তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানের (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) বিশাল জনসমাবেশে দেওয়া ওই ভাষণে বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতিকে স্বাধীনতা যুদ্ধের চূড়ান্ত প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

বিশাল জনসমুদ্রে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।’ পাকিস্তানি শাসক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে লড়াই শুরু করার আহ্বানের অধীর অপেক্ষায় ছিল বাঙালি জাতি। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের উদ্দীপ্ত ঘোষণায় বাঙালি জাতি পেয়ে যায় স্বাধীনতার দিক নির্দেশনা। স্বাধীনতার যে ডাক বঙ্গবন্ধু দিয়েছিলেন, তা বিদ্যুৎ-গতিতে সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ে। সেদিন বিকেল ৩টা ২০ মিনিটে বঙ্গবন্ধু রেসকোর্স ময়দানে উপস্থিত হন। লাখো মানুষের উপস্থিতিতে ময়দান ছিল কানায় কানায় পূর্ণ। স্লোগান ছিল ময়দানজুড়ে ‘পদ্মা মেঘনা যমুনা, তোমার আমার ঠিকানা’।

উপস্থিত জনতাকে বঙ্গবন্ধু যুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে নির্দেশ দিয়েছিলেন। মাত্র ১৯ মিনিটের ভাষণে তিনি ইতিহাসের পুরো ক্যানভাসই তুলে ধরেন। তিনি বলেছিলেন, ‘প্রত্যেক ঘরে ঘরে দুর্গ গড়ে তোলো। তোমাদের যা কিছু আছে, তাই নিয়ে শত্রুর মোকাবিলা করতে হবে’। প্রকৃতপক্ষে জাতির উদ্দেশে দেওয়া বঙ্গবন্ধুর ওই ভাষণই ছিল বাংলাদেশের স্বাধীনতার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা। আজকের দিনটি যথাযোগ্য মর্যাদায় ১ম বারের মতো জাতীয় দিবস হিসাবে পালন করা হয়েছে । বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সংগঠন ৭ মার্চ উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে ।

Author: Mansur Talukder

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *