আরও একবার আরও একবার যেতে মন চাই পুরান ঢাকার স্মৃতি বিজরিত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে

জগন্নাথ

আরও একবার আরও একবার যেতে মন চাই পুরান ঢাকার স্মৃতি বিজরিত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে

মনে পড়ে ২০ সেপ্টেম্বর ২ ০১৯, দিনটি ছিল শুক্রবার । ঐ দিন ছিল জবির ভর্তি পরীক্ষা। পরীক্ষার প্রশ্ন হাতে পেয়ে মনটা যেন ভরে গেল। আলহামদুলিল্লাহ পরীক্ষা ভাল দিলাম। এখন অপেক্ষায় আছি কবে রেজাল্ট দেবে। হঠাৎ একদিন আমার ভাইয়া আমাকে বলল, আমি চান্স পেয়েছি। এখন ভর্তি হতে যেতে হবে। ভর্তি পরীক্ষার দিন স্বপ্নের ক্যাম্পাস দুনয়ন ভরে দেখার সুযোগ পাইনি। কিন্তু এডমিশন টেষ্টের আগে ‘আরো একবার’ নাটকে জবির ক্যাম্পাস দেখি।

২৪ নভেম্বর রাতে বাসা থেকে রওয়ানা দিলাম। পরের দিন ভোরে পৌছালাম। ভোর তো অফিস খুলেনি, তাই স্বপ্নের জবির ক্যাম্পাসে প্রাণ ভরে দেখি। যত দেখি তত মুগ্ধ হয়ে যাই। তখন থেকে অপেক্ষায় থাকি কবে ক্লাস শুরু হবে। অবশেষে ১লা জানুয়ারি আসলো সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। প্রথম ক্লাস হবে ভেবে মন কেমন যেন খুশিতে মেতে ওঠে। সবচেয়ে ভালো লাগে যে ক্লাসে টেকনাফ থেকে তেতুলিয়ার মানুষ আছে। ক্লাসের সবাই অপরিচিত। তাদের সাথে কথাবার্তা বলতে অনেক ভাল লাগছে । ১৪ জানুয়ারি আমাদের ওরিয়েন্টেশন ক্লাসেই সকল ছাত্রছাত্রীর পরিচয় পর্ব শুনে মনে মনে ভাবছি আমার জেলার কে আছে? খুঁজে পেলাম ২ জন, তাদের সাথে কথা বলছি। হঠাৎ একদিন ডিপার্টমেন্টের বেশ কিছু বন্ধুবান্ধব মিলে যায় আহসান মঞ্জিলে। ছোটবেলায় বইতে পড়েছি আর এখন সরাসরি দেখে মন আবেগপ্লুত হয়ে গেল। কোন বন্ধুবান্ধবের জন্মদিনে কেক কেটে উৎযাপন করা, সেমিনার কক্ষে বসে পড়াশোনা, সিনিয়র ভাই আপুর থেকে ট্রিট খাওয়া এখন অনেক মিস করি।

৭৫ দিন ছিলাম প্রিয় ক্যাম্পাসে। অল্প সময়ের স্মৃতি প্রকাশ করছি কবিতায়– আমি একজন ছাত্র আই.এ পাস করেছি কেবলমাত্র এখন দেব আমি ভর্তি পরীক্ষা অর্জন করব উচ্চতর শিক্ষা । পড়েছি আমি ছোট্টবেলায় বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় । বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষার তরে আসছি আমি ঢাকা শহরে । প্রথমেই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষা দেব উত্তেজনার বিষয় । এক দেখাতে জবির ক্যাম্পাস তনুমন শিউরে উঠল আকষ্মাৎ । শিহরিত , আবেগী , উত্তেজনা চান্স পাবই , বাড়তি অনুপ্রেরণা । খুশিতে মন উল্লসিত , আত্নহারা চান্স পেয়েছি , সাক্ষী বসুন্ধরা । প্রথমদিন প্রিয় জবি ক্যাম্পাসে পুলকিত হৃদয় আনন্দে ভাসে । ক্যাম্পাসে কত অচেনা মুখ বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আগন্তুক । বন্ধুদের সাথে সারাক্ষণ হৈ চৈ বাধ্য আমি , ভুলে নীরব রই ।

আমরা ছিলাম নবাগত অতিথি রয়েছে কত অবিস্মরণীয় স্মৃতি । আটকে আছি করোনা ভাইরাসে কবে যাব স্মৃতি জড়িত ক্যাম্পাসে? সময় পাড় করছি দীর্ঘ অপেক্ষার দেখতে চাই জবি আরো একবার । কবে দেখব করনা মুক্ত ঊষা ? আরো একবার জবির ভালবাসা । স্বপনে দেখে আমার কায়া অন্তর হাতছানি দিচ্ছে স্মৃতি চত্ত্বর ।

সৌজন্যে – মোঃ আবদুল্লাহ আলমামুন সমাজবিজ্ঞান বিভাগ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ১৫ তম আবর্তন

Author: Mansur Talukder

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *