1. admin@manobkollan.com : admin :
  2. mkltdnews@gmail.com : Anamul Gazi : Anamul Gazi
  3. mkltd2020@gmail.com : Mansur Talukder : Mansur Talukder
  4. riff1431@gmail.com : Shariar R. Arif : Shariar R. Arif
  5. skjubayer.barguna@gmail.com : sk2021 :
  6. dxd9807@gmail.com : Sohel Mahmud : Sohel Mahmud
তাযকিয়ায়ে নফস এবং সম্মিলিত যিকির : কিছু আলোচনা - মানব কল্যাণ - Manobkollan
শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ০৪:১৫ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
আসসালামু আলাইকুম  মানবকল্যাণ এর সাথে যুক্ত হওয়ার জন্য  আপনাকে অভিনন্দন। আমরা আপনাদের সহযোগীতায় একদিন শিখরে পৌছাব "ই"। ইনশাআল্লাহ । বিজ্ঞপ্তিঃ সারাদেশব্যপী প্রতিনিধি নিয়োগ চলিতেছে।   ই-মেইলঃ info@manobkollan.com ফোন নাম্বারঃ 01718863323

তাযকিয়ায়ে নফস এবং সম্মিলিত যিকির : কিছু আলোচনা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : রবিবার, ১৪ মার্চ, ২০২১
  • ২৬ Time View
নফস

তাযকিয়ায়ে নফস এবং সম্মিলিত যিকির : কিছু আলোচনা

কামরুল ইসলাম বিন ওলীপুরী সাহেব যদি সম্মিলিত যিকিরের তাৎপর্য বুঝতেন, তাহলে তিনি ফেতনায় পড়তেননা, আসলে ওয়ায়েজ হবার আগে এলমে তাসাউফ এর জগতে পদার্পণ করা পূর্বশর্ত। যারা তাসাউফ জগতে পদার্পন করেনাই, তারা কামেল হতে পারেনা।তাসাউফ জগতের লক্ষ উদ্দেশ্য হচ্ছে তাযকিয়ায়ে নফস, তাযকিয়ায়ে নফসের মূল হচ্ছে আত্মাকে সব দিক থেকে বিমুখ করে আল্লাহ মুখী করে দেওয়া, আর সেই জন্য একজন আধ্যাত্মিক চিকিৎসক কিংবা তাসাউফ জগতের শাইখ দরকার, তিনি রিলিজিয়াস সাইকোলজিস্ট হিসাবে আত্মার চিকিৎসা দিবেন।

কারো আত্মা এমন কঠোর হয়ে যায় যে, সে আল্লাহ কে ডাকতেই পারেনা, সেই লোক কে যখন ১০ জন যিকিরকারির সাথে বসিয়ে দেওয়া হয় তখন সবার তালে তালে তার মাঝেও আল্লাহকে ডাকার অভ্যাস গড়ে উঠে।

মনে করুন এক ব্যক্তি জীবনে কখনো গজল গায় নাই, তাকে যদি বড় একটি গজলের কিংবা ইসলামি সংগীতের আসরে সবার সাথে বসিয়ে দেওয়া হয় তাহলে সবার সাথে ঠোঁট নাড়তে নাড়তে তার মাঝেও গজল গাওয়ার প্রবনতা সৃষ্টি হবে।

ঠিক তদ্রুপ যে ব্যক্তি চির জীবন নামাজ না পড়ার কারণে অন্তরে মরিচা পড়ে গেছে,অন্তর পাথরের মত শক্ত হয়ে গেছে, আল্লাহর যিকিরের স্বাদবোধ তার থেকে হারিয়ে গেছে। সেই লোকের অন্তর আত্মা বিশুদ্ধ করার জন্য প্রয়োজন হচ্ছে অন্তরে ধাক্কা লাগে এমন কিছু শব্দ যা সে জোরে জোরে নিজ মুখে বলবে। প্রয়োজনে ১০-২০ জনের সাথে তাল মিলিয়ে বলবে, আর মনের গহীনে ধাক্কা লাগার মত শব্দ হচ্ছে আল্লাহ_আল্লাহ, তাই কেউ যদি আল্লাহকে ডাকার অভ্যাস গঠনের জন্য সম্মিলিত যিকির করে, এবং যিকির করা শিখে নেয়, এইটা কতইনা উত্তম।

উদাহরণ স্বরুপ, ছোট ছেলে মেয়েরা যখন নুরানি মাদ্রাসায় কিংবা মক্তবে পড়ে, তখন তাদের পড়ার অভ্যাস গঠনের জন্য হুযুরগন তাদেরকে প্রতিটি শব্দ জোরে জোরে পড়াইয়া থাকেন।এতে করে বাচ্চাদের মাঝে পড়ার অভ্যাস গড়ে উঠে।

ঠিক তদ্রুপ যারা আল্লাহর যিকির করবে, তাদের কে আগে যিকির শিখতে হবে,, প্রতি সপ্তাহে অন্তত ২-১ বার যিকিরের হালকা করে অন্তরে ধাক্কা লাগিয়ে যিকির করবে এতে করে যিকিরের প্রতি ভালোবাসা বাড়বে, আর রাত দিন প্রতিটি মুহুর্তে যিকির করতে থাকবে, তাহলে যখন সম্মিলিত যিকির করা হয় এইটা হবে যিকির প্রশিক্ষন মজলিস আর এই মজলিস থেকে যিকির শিখতে থাকবে, কেউকেই এই যিকিরের মজলিস কে বেদাত বলে থাকে যদি এই মজলিস বেদাত হয়ে যায়,

তবে সম্মিলিত ভাবে কোরান শিখার সমস্ত মজলিস কে বেদ’আত বলতে হবে, কারণ আল্লাহর রাসূল সা: বলেন, সর্বোত্তম যিকির হচ্ছে কোরান তেলাওয়াত, এখন সম্মিলিত ভাবে কেউ কোরান তেলাওয়াত করলে এইটাকে কে বেদা’আত বলা যাবে?? কখনো না। তাই তাযকিয়ায়ে নফসের এই শাখার সাথে যারা বিরোধীতা করতেছে, তাদের মনের মাঝে আল্লাহ প্রেম নাই অথবা তারা এই বিষয় সম্যক জ্ঞান রাখেন না। আল্লাহ পাক আমাদের কে বুঝার তাওফিক দান করুন।

ড.শাইখ ইসমাইল আজহারী ভাইস প্রিন্সিপ্যাল, জামিয়া আজহারীয়া, আমীন বাজার,ঢাকা মহাপরিচালক, সেন্টার ফর সাইকোট্রমাটোলজি এন্ড রিসার্চ মোবাইল: 01640808549 ismailazhari49@gmail.com

সোসাল মিডিয়ায় সেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

বিভাগ

© All rights reserved © 2018-2021
Development Nillhost
error: Content is protected !!